ঢাকা বুধবার, অক্টোবর ৫, ২০২২

Popular bangla online news portal

গায়ে আগুন দিলেন পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী


নিউজ ডেস্ক
১২:৫৪ - বুধবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২
গায়ে আগুন দিলেন পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী

পটুয়াখালীর দশমিনায় নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়েছেন সুমি (৩০) নামে এক গৃহবধূ। তিনি দশমিনা থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সহিদুল আলমের স্ত্রী। 

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে দশমিনা থানা সংলগ্ন ওই পুলিশ কর্মকর্তার ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। আশঙ্কা অবস্থায় প্রথমে সুমিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

বাসার মালিক হারুন ফরেস্টার বলেন, আমার বাসায় দশমিনা থানার এএসআই সহিদুল আলম তার স্ত্রী নিয়ে থাকেন। বিয়ের পর থেকে বাচ্চা না হওয়ার কারণে প্রায়ই দুশ্চিন্তা ও পাগলামি করতেন সুমি। এ নিয়ে অনেক চিকিৎসক ও কবিরাজ দেখিয়েও কোনো লাভ হয়নি। তবে সহিদুল তার স্ত্রীর প্রতি সব সময় সন্তুষ্ট ছিলেন ও পারিবারিক কোনো কলহ ছিল না। সহিদুলের স্ত্রী নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেন। পরে তার স্বামী ও থানার পুলিশে সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে দশমিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। 

দশমিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মিঠুন চন্দ্র হাওলাদার জানান, পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী সুমির শরীরের ৫০ শতাংশের বেশি আগুনে পুড়ে গেছে। তাকে রাতেই উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে সুমিকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানতে পেরেছেন। 

বিষয়টি জানতে দশমিনা থানা পুলিশের এএসআই সহিদুল আলমের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি। 

এ ব্যাপারে দশমিনা থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) অনুপ দাস বলেন, আমরা বিষয়টি অবগত আছি। এএসআই সহিদুলের পারিবারিক কোনো সমস্যা ছিল না। তার স্ত্রী এমনটা কেন করেছেন তা জানতে পারিনি। বর্তমানে তাকে ঢাকার একটি হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।