ঢাকা বুধবার, মে ২৯, ২০২৪

Popular bangla online news portal

Janata Bank
Rupalibank

বসুন্ধরায় নান্দনিক শিক্ষাঙ্গন


নিউজ ডেস্ক
১৮:৩৯ - বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৩, ২০২৩
বসুন্ধরায় নান্দনিক শিক্ষাঙ্গন


দেশের শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ এবার শিক্ষাক্ষেত্রে আবির্ভূত হচ্ছে। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার এন ব্লকে নির্মিত হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন আধুনিক সুবিধা সংবলিত স্কুল অ্যান্ড কলেজ ক্যাম্পাস। সরকারের চূড়ান্ত অনুমোদনের পর ভূমিকা রাখবে আদর্শ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে।

 

আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের বিস্ময়। দেশের এই অগ্রযাত্রার অন্যতম সঙ্গী শীর্ষ শিল্প উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপ। ব্যবসার পাশাপাশি কল্যাণমূলক কাজে বসুন্ধরা গ্রুপ বরাবরই অন্য সবার চেয়ে এগিয়ে। দেশের খেলাধুলাকে ভিন্ন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার জন্য এরই মধ্যে চালু হয়েছে বসুন্ধরা স্পোর্টস কমপ্লেক্স। বিশ্বমানের ক্রীড়া সুবিধা নিয়ে এ কমপ্লেক্সের একাধিক প্রকল্প এখনো চলমান। সব কিছুর পাশাপাশি এবার শিক্ষাক্ষেত্রে আবির্ভূত হচ্ছে বসুন্ধরা গ্রুপ। বসুন্ধরা স্পোর্টস কমপ্লেক্সের কোল ঘেঁষে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার এন ব্লকে নির্মিত হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন আধুনিক সুবিধা সংবলিত ক্যাম্পাস। প্রস্তাবিত বসুন্ধরা পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজটিকে একটি আদর্শ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার জন্য নেওয়া হচ্ছে সর্বাত্মক প্রস্তুতি। এ এলাকার বাসিন্দাদের দীর্ঘদিন ধরেই এমন একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চাহিদা ছিল। রাজধানীর বুকে সবচেয়ে আধুনিক আবাসিক এলাকা হিসেবে বসুন্ধরা বছরের পর বছর ধরে সমাদৃত হয়ে আসছে। সেই ধারাবাহিকতা অক্ষুণ্ণ রাখতে এবং মানুষের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে এই মহতী উদ্যোগ। বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান নিজে এই প্রকল্পের স্বপ্নদ্রষ্টা। এর মাধ্যমে দেশের শিক্ষাক্ষেত্রে নতুন এক দিগন্তের সূচনা করতে যাচ্ছে বসুন্ধরা গ্রুপ। পরিকল্পনা অনেক দিন আগের হলেও মূল ভবনের নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০২০ সালে। প্রায় ১০ বিঘা জমিজুড়ে এক নান্দনিক ক্যাম্পাস গড়ে তোলার মহাপরিকল্পনা গৃহীত হয়। সেই মহাপরিকল্পনা এখন অনেকটাই বাস্তবায়নের পথে। স্কুলের মূল সাত তলা ভবনটির কাজ প্রায় শেষের পথে। আশা করা হচ্ছে, এ বছরের শেষ নাগাদ নির্মাণকাজ সম্পন্ন হবে। এর স্থাপত্য নকশা করেছেন স্থপতি মোহাম্মদ ফয়েজ উল্লাহ। আজকাল শহুরে পরিবেশে শিক্ষাঙ্গনের নিজস্ব খেলার মাঠ স্বপ্নের মতো। সে স্বপ্ন পূরণ করবে বসুন্ধরার এই শিক্ষাঙ্গনটি। শিক্ষার্থীদের জন্য চার বিঘা জমিজুড়ে খেলার মাঠ তৈরি হচ্ছে। এ ছাড়া শিক্ষা ভবনের ভিতরেও পর্যাপ্ত খোলা জায়গা রাখা রয়েছে। প্রায় ১ হাজার বর্গফুটের আধুনিক পাঠদানকক্ষ থাকছে ৬৫টি। বিশেষায়িত শ্রেণিকক্ষ, কমন ক্লাস রুমও থাকছে। কনফারেন্স রুম, কমন রুম, আধুনিক ল্যাব, এক্সিবিশন হল, ক্যাফেটেরিয়া ছাড়াও থাকছে সাড়ে ৪ হাজার বর্গফুটের একটি লাইব্রেরি। প্রযুক্তি জ্ঞান ও হাতেকলমে আধুনিক পাঠদানের জন্য লাইব্রেরি ও ল্যাবরুমে থাকবে সব ধরনের আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন সুযোগ-সুবিধা। সাড়ে ৪ হাজার বর্গফুটের একটি বড় ক্যাফেটেরিয়া ও শিক্ষকদের জন্য ১২টি টিচার্স রুম রয়েছে। ভবনের গ্রাউন্ড ফ্লোর, দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলার প্রতিটিতে ৪০ হাজার বর্গফুট এবং চতুর্থ থেকে সপ্তম তলার প্রতিটিতে ৩০ হাজার বর্গফুট জায়গা রয়েছে। সব মিলিয়ে প্রায় ২ লাখ ৭০ হাজার বর্গফুট জায়গাজুড়ে বিস্তৃত এ ভবনটি। সুপরিসর স্কুল ও কলেজে একসঙ্গে ৫ হাজারের অধিক শিক্ষার্থী শিক্ষাকার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন। শিক্ষার্থীদের পরিবহন সুবিধা দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। শিক্ষা ভবনের উত্তর দিকে বিশাল পার্কিং এরিয়া থাকছে। এ মহৎ উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন রাউজক উত্তরা মডেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী শওকত আলম, এনডিসি, পিএসসি (অব.)। তিনি বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপ বিশ্বমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার মহৎ উদ্যোগ নিয়েছে। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা ও আশপাশে যারা থাকেন তাদের মধ্যে এমন একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চাহিদা ছিল। এটি বাংলা মাধ্যম ও ইংরেজি ভার্সনে আদর্শ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে উঠবে।’ প্রস্তাবিত এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শুরুতে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি এবং পরবর্তীতে নবম ও দশম শ্রেণির শিক্ষা কার্যক্রম চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে। এরপর একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষা কার্যক্রম চলবে। কো-এডুকেশনে মেয়েদের জন্য আলাদা সেকশন থাকবে। আগামী শিক্ষাবর্ষেই কার্যক্রম শুরুর পরিকল্পনা নিয়ে সব ধরনের কাজ সম্পন্ন হচ্ছে। পাঠদানের পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রম শিক্ষার্থীদের মনোদৈহিক বিকাশে ভূমিকা রাখে। বসুন্ধরা স্পোর্টস কমপ্লেক্সের পাশে গড়ে ওঠায় এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বিশ্বমানের স্টেডিয়াম ও ক্রীড়াবিদদের সংস্পর্শে বেড়ে ওঠার সুযোগ পাবেন। ফুটবল, ক্রিকেটসহ বিভিন্ন ধরনের খেলার মাঠ, সুইমিং পুল ও শরীরচর্চার সুযোগ রয়েছে এখানে।  এ বিষয়ে কাজী শওকত আলম বলেন, ‘বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান মহোদয় চান, শিক্ষার পাশাপাশি যেহেতু এখানে খেলাধুলার সব ধরনের সুযোগ রয়েছে শিক্ষার্থীরা যেন তার পুরো সুবিধা ব্যবহার করতে পারেন।’