• ঢাকা
  • শনিবার, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
প্রকাশিত: ৯ নভেম্বর, ২০২১
সর্বশেষ আপডেট : ৯ নভেম্বর, ২০২১

দেশেই তৈরি হবে করোনার ওষুধ!

অনলাইন ডেস্ক
[sharethis-inline-buttons]

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) চিকিৎসায় মুখে খাওয়ার নতুন ট্যাবলেট ‘মলনুপিরাভির’ দেশেই তৈরি হবে। এ সপ্তাহেই দেশের কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ওষুধটি উৎপাদনের অনুমতি পেতে যাচ্ছে।

ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর সূত্র বলছে, এসকেএফ, স্কয়ার, বেক্সিমকো, রেনেটা, ইনসেপ্টা, বিকনসহ ৮ থেকে ১০টি প্রতিষ্ঠান এ ওষুধ উৎপাদনের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেছে। শিগগিরই তাদের ‘রেসিপি’ অনুমোদন দেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রেসিপি অনুমোদনের পর ওষুধ কোম্পানিগুলো নিজেরা ওষুধ তৈরি করে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরে জমা দেবে। অধিদপ্তর সেটি পরীক্ষা করে দেখবে এবং সব ঠিক থাকলে ‘মলনুপিরাভির’ উৎপাদন ও বাজারজাত এবং ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হবে।

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় এতদিন অনুমোদিত কোনো সুনির্দিষ্ট ওষুধ ছিল না। ‘মলনুপিরাভির’ ট্যাবলেটটি সে ক্ষেত্রে নতুন আলোর সন্ধান দিয়েছে। ওষুধটি চার দিন আগে যুক্তরাজ্য সরকার অনুমোদন দিয়েছে।

‘মলনুপিরাভির’ সেবন করলে করোনায় আক্রান্তদের হাসপাতালে ভর্তি থাকার প্রয়োজন কমবে, মৃত্যুও কমবে বলে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে প্রমাণিত হয়েছে। করোনায় আক্রান্তদের দিনে দুইবার এ ওষুধ খেতে দেওয়া হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দুই কোম্পানি মার্ক শার্প অ্যান্ড ডোম (এমএসডি) ও রিজেবাক বায়োথেরাপিউটিক যৌথভাবে তৈরি করেছে লাগেভ্রিও (মলনুপিরাভির) নামে মুখে খাওয়ার এ ট্যাবলেট।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘মলনুপিরাভির’ সাধারণত ফ্লুর চিকিৎসায় ব্যবহারের জন্য তৈরি করা হয়। তবে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে দেখা গেছে, এটি করোনা রোগীর জন্যও উপযুক্ত, যা এ ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু বা হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ঝুঁকি প্রায় অর্ধেক কমিয়ে দিতে পারে।

[sharethis-inline-buttons]

আরও পড়ুন