এবার প্রাকৃতিক বালাই কম থাকায় নওগাঁর বরেন্দ্র এলাকায় আমের ভালো ফলনের আশা করছেন বাগান মালিকরা। টানা এক মাস খরার পর ক’দিন আগে বৃষ্টিতে সতেজ হয়ে উঠেছে বাড়ন্ত আমগুলো। মে মাসের মাঝামাঝিতে আম বাজারজাত করতে বাগানে চলছে নিবিড় পরিচর্যা। কৃষি বিভাগ বলছে, অনুকূল আবহাওয়ায় এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি আম উৎপাদন হবে জেলায়।

থোকায় থোকায় ঝুলে থাকা সবুজ সতেজ বাড়ন্ত আমগুলোতে যেন দুলছে কৃষকের স্বপ্ন । গত প্রায় এক মাস বৃষ্টি ছিল না বরেন্দ্র এলাকায়, তাই বোটা থেকে ঝরে পড়তে শুরু করেছিল আম। কিন্ত গত সপ্তাহে মুষলধারে বৃষ্টিতে সতেজ হয়ে উঠেছে নওগাঁর বরেন্দ্র এলাকার আম বাগানগুলো। এতে ঝরে পড়া রোধসহ পোক্ত বোটায় বাড়ছে পরিপক্বতা।

আসছে মে মাসের শেষ সপ্তাহে বাণিজ্যিকভাবে আম বাজারজাত করার জন্য বাগানে চলছে নিবিড় পরিচর্যা। আপদকালীন বালাই দূর করতে গাছে ঝুলে থাকা আমে সকাল বিকেল ছিটানো হচ্ছে পানি। এবার ঘন কুয়াশা ও শীত দীর্ঘস্থায়ী হওয়ায় দেরিতে মুকুল আসলেও শেষ পর্যন্ত ভালো ফলনের আশা বাগান মালিকদের।

গতবারের মতো এবারো আমের ভালো ফলন ও বাজার নিশ্চিতে কাজ করছে কৃষি বিভাগ বলে জানান মহাদেবপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শ্রী অরুণ কুমার রায়।

কৃষি গবেষণার তথ্য মতে, বরেন্দ্র এলাকায় অন্তত ২২ প্রজাতির সুস্বাদু জাতের আমের বাগান রয়েছে। এর মধ্যে ল্যাংড়া, গোপাল ভোগ ও খিরসাপাত জাতের আম রয়েছে। বাগানের গাছ থেকে মে মাসের ২০ তারিখের পর নামানো শুরু হবে আম।