যে স্বাস্থ্যবিধি মানবে না তার দোকান বন্ধ করে দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ডা. দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহীন।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) সকালে দোকান মালিকদের উদ্দেশে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

এদিন সকালে নিউমার্কেট এলাকায় দেখা যায়, সবার মধ্যে দোকান সাজানোর তোড়জোড়। ব্যবসা করার সুযোগ পেয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেন বিক্রেতারা।

সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে তৎপর দেখা গেছে ব্যবসায়ী সমিতির নেতাদের। ক্রেতাদের চলাফেরায় জটলা এড়াতে মার্কেটে ফাঁকা জায়গা নিশ্চিত করায় জোর দেয়া হয়।

ব্যবসায়ীরা আশা করছেন, সামনের ঈদ মৌসুমে আশানুরূপ বেচাকেনায় আবারও তারা লোকসান থেকে ঘুরে দাঁড়াবেন।

এর আগে শুক্রবার (৯ এপ্রিল) থেকে পাঁচ দিন কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত শপিংমল খোলা রাখা যাবে বলে ঘোষণা দেয় সরকার।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, শুক্রবার (৯ এপ্রিল) থেকে ১৩ এপ্রিল সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কঠোর স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন সাপেক্ষে দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখা যাবে। তবে, স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন না করা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রমও যথারীতি চলমান থাকবে।

এর আগে রোববার (৪ এপ্রিল) দেশে করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ রোধে ৫ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। সেখানে বলা হয়, এ সময় দেশের সব শপিংমল ও দোকান বন্ধ থাকবে। তবে পাইকারি ও খুচরা পণ্য অনলাইনের মাধ্যমে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই কর্মচারীদের মধ্যে আবশ্যিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে এবং কোনো ক্রেতা সশরীরে যেতে পারবে না।