রাজকীয় লকডাউন!

করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ও মৃত্যু ঠেকাতে দেশব্যাপী সকাল ৬ টা থেকে শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধের লকডাউন। সকাল ৯ টায় রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর চৌরাস্তায় গিয়ে দেখা গেলো মানুষের ভীড়। বেশিরভাগেরই গন্তব্য অফিস। কিন্তু আজ থেকে সব প্রকার গণপরিবহন তো বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। লকডাউনে বের হওয়া মানুষেরা অফিস যাবে কিভাবে? তবে গণপরিবহন পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে এ কথা বলার অবকাশ নেই।

বাস নেই, সিএনজি, রিক্সার ভাড়া বেড়েছে বহুগুণ। যার ফলে অফিসের উদ্দেশ্য বের হওয়া মানুষের উপচে পড়া ভীড় দেখা গেছে। এমন সময় যাত্রাবাড়ীর চৌরাস্তায় দেখা গেলো ঘোড়ার গাড়ি। আর তাতেই অফিসের জন্য চেপে বসতে দেখা গেছে অনেককেই।

বাস বন্ধ; বাধ্য হয়েই ঘোড়ার গাড়ি, ট্রাকে চড়ে গন্তব্যের উদ্দেশ্য রওনা হচ্ছে মানুষ। মাঝে মাঝে দু’একটা বাসকে যাত্রী নিতে দেখা গেছে। তাছাড়া বহুগুণ চাহিদা বেড়েছে সিএনজি, রিক্সার।

তবে মানুষকে ২-৩ তিনগুন বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে এসব যানে চড়তে।

উল্লেখ্য, দেশে করোনার সংক্রমণ রোধে আজ থেকে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, ১১ দফা নিষেধাজ্ঞায় সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালত, ব্যাংক জরুরি প্রয়োজনে সীমিত পরিসরে খোলা রাখার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।