ঢাকা বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৮, ২০২২

Popular bangla online news portal

সিলেটে বন্যার্তদের সাহায্যে পাশে দাড়ালো গ্র্যাজুয়েট ফাউন্ডেশন


নিউজ ডেস্ক
১১:৩৯ - রবিবার, জুন ২৬, ২০২২
সিলেটে বন্যার্তদের সাহায্যে পাশে দাড়ালো গ্র্যাজুয়েট ফাউন্ডেশন

স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেটবাসীর সাহায্যে এগিয়ে আসলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠণ গ্র্যাজুয়েট ফাউন্ডেশন সোনারগাঁ।

ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মামুন মোল্লা ও নির্বাহী পরিচালক মোঃ দ্বীনইসলাম অনিকের নেতৃত্বে ১২ জনের একটি দল শুক্রবার ( ২৪ জুন ) রাত ১০টায় প্রায় ২শতাধিক পরিবারের জন্য খাদ্য সামগ্রী,ঔষধ ও শিশুদের বিভিন্ন রকম খাদ্য সামগ্রী নিয়ে সিলেটের ছাতক উপজেলার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।পরের দিন শনিবার পবিত্র ফজরের নামাজ পড়ে সকলের জন্য দোয়া শেষে খাদ্য সামগ্রী ভর্তি গাড়ী নিয়ে বন্যায় বর্তমানে সিলেটের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার মাঝে অন্যতম দূর্গম ও নিম্ন আয়ের মানুষের বসবাসের কয়েকটি গ্রামের উদ্দেশ্যে ট্রলারে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে রওয়ানা হয় গ্র্যাজুয়েট ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবীরা।

 

প্রায় ২ঘন্টা ট্রলারে যাওয়ার পর দ্বীপের মতো দেখতে যে গ্রামটিতে গিয়ে পৌছে তখন গ্রামবাসী জানায় সেই গ্রামের নাম সহিদাবাগ।তারা সবাই কৃষিকাজের ওপর নির্ভরশীল।বন্যার পানিতে তাদের সকল কৃষি জমি ও ঘরবাড়ী তলিয়ে যাওয়ায় কয়েকদিন নৌকায় ও কেউ কেউ আশ্রয় কেন্দ্রে বা দূরের কোন স্বজনদের বাড়ীতে আশ্রয় নিয়ে পানি কিছুটা কমে যাওয়ায় ভিটে বাড়তে ফিরে আসে।তাদের শিশুদের নিয়ে কয়েকদিন যাবত খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে। দু'একটা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠণ কিছু শুঁকনো খাবার দিয়ে যাওয়ায় সেগুলো খেয়ে প্রায় ৩/৪দিন ভাত না খেয়ে অতিকষ্টে দিন কাটাচ্ছে। গ্র্যাজুয়েট ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে চাল,ডাল,আলু,পেয়াজ,তেল,লবন,স্যালাইন,ও শিশুদের খাবার পেয়ে তারা খুব খুশি হয় এবং ফাউন্ডেশনের সবাইকে ধন্যবাদ জানায়।



কিছু কিছু বাড়ীতে ঘর থাকলেও অধিকাংশ বাড়ীতেই তাদের ঘরবাড়ী প্রায় না থাকার মতো অবস্থায় জরাজীর্ণ ছিলো। ভিটেমাটির ওপরে মাচা তৈরি করে পলিথিন ও ভাঙ্গা টিনের টুকরো দিয়ে শিশুদের নিয়ে অতিকষ্টে দিন কাটাচ্ছে ওই এলাকার বানভাসি মানুষ গুলো। এসময় উপস্থিত ছিলেন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মামুন মোল্লা,নির্বাহী পরিচালক মোঃ দ্বীনইসলাম অনিক,মাসুম আহম্মেদ,সোহেল আহম্মেদ,মোমেন মোল্লা,মীমরাজ হোসেন ও স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে ছিলেন সুমন হাসান ও স্বপন আহম্মেদ।



ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মামুন মোল্লা ও নির্বাহী পরিচালক মোঃ দ্বীনইসলাম অনিক জানান,সিলেটের বিভিন্ন এলাকা ও লালমনিরহাট,কুড়িগ্রাম সহ কয়েকটি জেলায় বন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।যা চোখে না দেখলে কেউ বুঝবে না যে খাবারের জন্য মানুষ কতোটা কষ্ট করছে।সমাজের যারা বিত্তবান ও সম্পদশালী ব্যাক্তি রয়েছেন তাদের কাছে অনুরোধ থাকবে দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে বানভাসি মানুষদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসুন।আবারও প্রমান করুন মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য।