ঢাকা রবিবার, মে ২২, ২০২২

Popular bangla online news portal

আইএএফ ওয়ার্ল্ড ফ্যাশন কনভেনশন নভেম্বরে


নিউজ ডেস্ক
১১:২৪ - শনিবার, মে ১৪, ২০২২
আইএএফ ওয়ার্ল্ড ফ্যাশন কনভেনশন নভেম্বরে

ঢাকায় প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হচ্ছে ‘আইএএফ ওয়ার্ল্ড ফ্যাশন কনভেনশন ২০২২’। আগামী নভেম্বরে ৩৭তম এ কনভেনশন অনুষ্ঠিত হ‌বে। একইস‌ঙ্গে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ উইক’ নামে সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শনীর আ‌য়োজ‌ন করা হ‌বে। 

যেখা‌নে বাংলা‌দে‌শের তৈ‌রি পোশা‌কের সম্ভাবনা ও সক্ষমতা তু‌লে ধরা হ‌বে। আইএএফ, বিজিএমইএ ও বিকেএমইএর উদ্যোগে ওয়ার্ল্ড ফ্যাশন কনভেনশন অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার (১৪ মে) রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আয়োজনের বিস্তা‌রিত তথ্য তু‌লে ধরেন তৈরি পোশাক মালিক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি ফারুক হাসান।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইন্টারন্যাশনাল অ্যাপারেল ফেডারেশনের (আইএএফ) সেক্রেটারি ম্যাথিজস ক্রিয়েটি ও বিকেএমইএর ভাইস প্রেসিডেন্ট ফজলে শামীম এহসান।

বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘মেইড ইন বাংলাদেশ উইক’ নামের প্রোগ্রামটি ১২-১৮ নভেম্বর সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে। এ আয়োজনের উদ্বোধন করার কথা র‌য়ে‌ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনার।

তিনি জানান, এ আয়োজনে থাকবে ৩৭তম আইএএফ ফ্যাশন কনভেশন,  ৩৭তম ঢাকা অ্যাপারেল সামিট, ঢাকা অ্যাপারেল এক্সিবিশন, ডেনিম এক্সপো, পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান, যেমন; জিআইজি দ্যা সাসটেইনেবল লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড, সাসটেইনবেল ফ্যাশন অ্যাওয়ার্ড অ্যান্ড ফ্যাশন ফটোগ্রাফি অ্যাওয়ার্ড, ফ্যাশন ও কালচারাল ফেস্টিভ্যাল, গ্লোবাল লাউঞ্চিং অব বিজিএমইএ ইনোভেশন সেন্টার।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, তিন বছর আগে দেশে ওয়ার্ল্ড ফ্যাশন কনভেনশন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। বাংলাদেশের ৫০ বছর পূর্তিতে দেশের পোশাক খাত সংশ্লিষ্টরা এ আয়োজন করতে চেয়েছিলেন। গত বছরের নভেম্বরে করোনা থাকায় সে বছরও এ আয়োজন করা যায়নি। 

তিনি বলেন, গত দুই বছরে দেশে ও দেশের বাইরে আমরা কোনো মেলা বা এক্সিবিশন করতে পারিনি। আমাদের যে সক্ষমতা এই আয়োজনের মাধ্যমে তা তুলে ধরব। সভা সেমিনার, ফটোগ্রাফের মাধ্যমে দেশের ব্র্যান্ডিং করা হবে।

এক প্রশ্নের উত্তরে আইএএফের সেক্রেটারি ম্যাথিজস ক্রিয়েটি বলেন, ৩৭তম ওয়ার্ল্ড ফ্যাশন কনভেনশনে ১০০ থেকে ১৫০ বায়ার কিংবা বায়ার প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।

সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ সভাপতি আরও বলেন, কাঁচামাল সংকট, জ্বালানি তেল, গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি,  কন্টেইনার ও জাহাজ ভাড়া অস্বাভাবিক বাড়ার কারণে আমাদের উদ্যোক্তারা ক্রমবর্ধমান উৎপাদন ব্যয় ও সাপ্লাই চেইনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে হিমশিম খাচ্ছেন।

লি‌খিত বক্ত‌ব্যে ফারুক হাসান বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে একদিকে যেমন জ্বালানি তেলসহ খাদ্যের মূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে, অন্যদিকে ইউরোপসহ বিশ্বের বেশ কিছু দেশে অর্থনৈতিক মন্দার আশঙ্কা বাড়ছে। এর পাশাপাশি সমগ্র বিশ্বে মূল্যস্ফীতি ভয়াবহভাবে বাড়ছে, যা আন্তর্জাতিক বাজারে পোশাকের চাহিদা ও ক্রয় ক্ষমতাকে প্রভাবিত করতে পারে। বিষয়টি আমাদের উদ্যোক্তাদের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ। এই পরিস্থিতিতে পোশাক রপ্তানিতে বর্তমানে যেই প্রবৃদ্ধিটি দেখা যাচ্ছে, সেটির দিকে না তাকিয়ে থেকে বরং কীভাবে আমরা প্রতিযোগী সক্ষমতা আরও বাড়াতে পারি, কীভাবে নতুন নতুন সুযোগ তৈরি করতে পারি, সেটিই আমাদের কৌশল হওয়া উচিত।

অনুষ্ঠা‌নে বাংলাদেশের বিভিন্ন ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির বিষয়ে সংকলন আকারে আরও একটি ‘কফি টেবিল বই’ উন্মোচন করা‌ হ‌বে উল্লেখ করে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে গর্ব করার মতো অনেক কিছু আমাদের থাকলেও তা যথাযথ প্রচারের অভাবে বিশ্বব্যাপী প্রচারণা পাচ্ছে না।