সৌদি আরবের জনপ্রিয় ফাস্টফুড ব্রান্ড ‘হারফি’ এর আরেকটি আউটলেট চালু হলো ধানমন্ডীতে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ধানমন্ডীর ১৬ নম্বর সড়কে (পুরাতন ২৭) বাংলাদেশে স্বল্প সময়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা ফাস্টফুড ব্রান্ডটির পঞ্চম শাখার ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন বাংলাদেশে সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ইসা বিন ইউসুফ আল-দুহাইলান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ এমপি। গ্রীনল্যান্ড গ্রুপ ও হারফি বাংলাদেশ লিমিডেট এর চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আবদুল হাই অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

ধানমন্ডীর (পুরাতন ২৭) শেখ কামাল সরনির প্লট-২৭৫ এইচ (পুরনো), ৩৮/২ (নতুন) এ আউটলেটটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের সচিব ড. আহমেদ মনিরুস সালেহীন ও হারফি বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক আবদুল গনি। উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য লে: জেনারেল মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী (অব.) (ফেনী-৩)সহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ বলেন, সৌদি আরবের ফাস্টফুড ব্রান্ড হারফির ৫ম আউটলেটটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আসতে পেরে আমি খুবই আনন্দিন। কারণ এতোদিন সৌদি আরবের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক ছিল জনশক্তি রপ্তানি কেন্দ্রিক। সম্প্রতিককালে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে যৌথ বিনিয়োগে ব্যবসায়িক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। হারফি বাংলাদেশ তারই অংশ। আমরা মনে করছি, সৌদি আরব বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবে। আমরাও এ দিক থেকে গিয়ে সৌদি আরবে বিনিয়োগ করবো। তিনি হারফি বাংলাদেশ দ্রুত সময়ে জনপ্রিয় ওঠার পেছনে এর চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মেহাম্মদ আবদুল হাইয়ের ব্যবসায়িক দক্ষতার কথা উল্লেখ করে বলেন, শিগগিরই হারফির আরও আউটলেট উদ্বোধনের অপেক্ষায় রইলাম।

বাংলাদেশে সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত ইসা বিন ইউসুফ আল-দুহাইলান বলেন, হারফি সেীদি আরবের একটি ফাস্টফুড ব্রান্ড। এর প্রোডাক্ট শতভাগ হালাল। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সাথে সৌদি আরবের সম্পর্ক বহুমাত্রিক। এছাড়া সৌদি ভিশন-২০৩০ এর আওতায় বাংলাদেশের যে কোন বিনিয়োগকে সৌদি আরব স্বাগত জানাবে। তিনি বাংলাদেশে গ্রীনল্যান্ড গ্রুপের অধীনে হারফির সফলতা কামনা করেন।

প্রসঙ্গত, হারফি মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক বিশ্বের এক নম্বর হালাল কুইক সার্ভিস রেস্তোঁরা চেইন। হারফির সমগ্র মধ্যপ্রাচ্যে চার শতাধিক আউটলেট রয়েছে। ২০১৭ সাল থেকে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করেছে এবং এরই মধ্যে গুলশান ১, বনানী ১১, উত্তরা সেক্টর ১৪ এবং মিরপুর ১১-এ ৪ টি আউটলেট রয়েছে।

ধানমমন্ডীর ১৬ নম্বর সড়কের আউটলেটটি শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা থেকে ক্রেতা সাধারণের জন্য উন্মুক্ত হবে।