করোনা মহামারির কারণে বাংলাদেশসহ ৩৫টি দেশের নাগরিকদের কুয়েতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও দেশগুলোর চার ক্যাটাগরির অভিবাসীদের প্রবেশের সুযোগ করে দিয়েছে দেশটির সরকার।

এর মধ্যে কূটনীতিক, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা রয়েছেন। কুয়েত সরকারের এমন পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কাসহ ৩৫ দেশের নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করে কুয়েত সরকার। দীর্ঘদিন পর সেই নিষেধাজ্ঞায় শিথিলতা এনেছে দেশটি সরকার।

ওই ৩৫টি দেশের চার ক্যাটাগরির অভিবাসীদের কুয়েতে প্রবেশের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে কুটনীতিক, চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বাস্থ্যকর্মী ও গৃহকর্মী রয়েছেন।

সংক্রমণ রোধে দেশটিতে বিভিন্ন বিধি-নিষেধ জারি থাকলেও কোনোভাবেই আক্রান্তের সংখ্যা কমানো যাচ্ছে না।