করোনা কালিন সময়ে ঝিনাইদহের সাধুহাটি ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের শিক্ষিত বেকার যুবক তুহিন, অসময়ে ব্লাক বেবি জাতের তরমুজ চাষ করে এলাকায় সাড়া ফেলে দিয়েছে।
করোনা কালিন সময় বাড়ি বসে না থেকে কিছু একটা করার সিন্ধান্ত নেই। ইন্টারনেটে সে তরমুজ চাষ দেখেছেন তাই কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের সহযোগীতা নিয়ে চাষ শুরু করেণ।
তরমুজ চাষি তাসনিন আলম (তুহিন) জানান, মাত্র ৬০ শতক জমিতে তরমুজ চাষ করেছেন, খরচ হয়েছে ৯০ হাজার টাকা। তরমুজ লগানোর দিন থেকে বিক্রয় পর্যন্ত সময় লেগেছে ৫৮ দিন।
তিনি জানান, খরচ বাদে ২লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা লাভ হয়েছে।
কৃষক বজলু জানান আমাদের এলাকায় এই প্রথম অসময়ে তরমুজ চাষ, সেই কারনে এলাকার মানুষ, তুহিনের তরমুজ ক্ষেত দেখতে আসেন অন্য কৃষকরা।
উপ-পরিচালক কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর ঝিনাইদহ কৃপাংশু শেখর বিশ্বাস তরমুজের মাঠ পরিদর্শ করতে এসে জানান, মাত্র দুই মাসের ফসল, এই তরমুজ, অল্প সময় লাভ হয় ভালো। কৃষি বিভাগ এর পারামর্শে তুহিন ব্লাক বেবি জাতের তরমুজ চাষ করেছেন, এবং সাফল্য জনক টাকা উপার্যন করতে পেরেছে। আমরা সবসময় কৃষকের সাথে আছি, চাষ-আবাদ সংক্রান্ত যে কোন পরামর্শ কৃষক পাচ্ছেন।