অবশেষে এলো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। স্থগিত হয়েছে বাংলাদেশের শ্রীলংকা সফর। সোমবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে শ্রীলংকায় যাওয়া সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিসিবি সভাপতি।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বিসিবিতে আসেব বোর্ড সভাপতি ও কর্মকর্তারা। সেখানেই এক জরুরী বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয় বলে জানান বোর্ড সভাপতি।

তিনি বলেন, ওরা(শ্রীলংকা) আমাদের গতকালই জানিয়েছে আমাদের একটা শর্ত বাদে সবই তারা মেনে নিতে পারবে। তবে ওই একটা শর্তই মেইন। তা হলো ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন। তবে তা মেনে নেয়া সম্ভব না। এটাও আমরা আজ জানিয়ে দিয়েছি।

পাপন আরো বলেন, আসলে এ বিষয়টা ওদের টাস্কফোর্সের ব্যাপার। ওদের কোয়ারেন্টাই বলতে যে শুধু বাসায় থাকা তা নয়। পুরো আইসোলেশনে থাকা। মানে কেউ রুম থেকে বেরও হতে পারবে না। এমন ভাবে একজন ক্রিকেটার থাকতে পারে না। শুধু যে তার ফিটনেসের সমস্যা হবে তা নয়। সে মানসিকভাবেও অসুস্থ হতে পড়বে। তাই এভাবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের সিরিজ খেলা সম্ভব না। তাই তাদের জানিয়ে দিয়েছি যে সূচি রিসিডিউল করতে। পরিস্থিতি ঠিক হোক তখন সিরিজ নিয়ে ভাবা যাবে।

এর আগে শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ডের সিইও অ্যাশলে ডি সিলভা বলেছিলেন, কোভিড টাস্কফোর্স থেকে আমরা যে বার্তা পাবো সেটাই বিসিবিকে পাঠাব। বিসিবি যদি টাস্কফোর্সের স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মানতে প্রস্তুত না থাকে, তাহলে সিরিজটি আমাদের স্থগিত করতে হবে। সেক্ষেত্রে আগামী বছর বা পরের বছর এই সিরিজটি আয়োজনের চিন্তা করব।

এর আগে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন এবং ওই সময়ে অনুশীলনে নিষেধাজ্ঞাসহ বেশকিছু শর্ত বেঁধে দেয় লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের দাবি ছিল, কোয়ারেন্টাইন ৭ দিনে নামিয়ে আনা। একইসঙ্গে কোয়ারেন্টাইন চলাকালীন সময়ে অনুশীলনের দাবি জানায় বিসিবি। তবে এর কোনো কিছুই মেনে নেয়নি দেশটির কোভিড টাস্কফোর্স।

সফরে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এই সিরিজটি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্গত।